Skip to content

ইস্তেখারার দোয়া নিয়ম ও নামায অর্থসহ বাংলা উচ্চারণ

ইস্তেখারার দোয়া নিয়ম ও নামায

আসসালামু আলাইকুম আশা করি ভাল আছেন , আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি অনেক ভালো আছি। আজকের আলোচনায় আমি নিয়ে এসেছি ইস্তেখারার দোয়া নিয়ম ও নিয়ত সম্পর্কিত সকল বিষয় সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। ইস্তেখারার দোয়া সম্পর্কিত বিষয়গুলো সম্পর্কে অনেকেই জানেন না এ ক্ষেত্রে অনলাইনে অনুসন্ধান করে থাকেন এই বিষয়ে সম্পর্কে জানার জন্য। এরমধ্যে অনেকেই দোয়া নিয়ম ও নামাজ এর নিয়মাবলী সম্পর্কিত বিষয় গুলি জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তবে এই বিষয়ের উপর খুব কমসংখ্যক তথ্য রয়েছে অনলাইনে তাই বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রদানের লক্ষ্যে আজকের আলোচনা। অনেকেই রয়েছেন জানেন না ইস্তেখারার কি ? এর নিয়মাবলী বা নামাজ পড়ার নিয়ম নামাজের দোয়া অর্থ সহ বিভিন্ন তথ্য প্রদানের লক্ষ্যে আজকের আলোচনার বিষয় ভিত্তিক আলোচনা আমাদের সাথে থাকলে আপনি অবশ্যই এই বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন এবং সে অনুযায়ী আমল করতে সক্ষম হবেন।

ইস্তেখারার শর্ত

  1. মনে মনে নিয়্যাত করা।
  2. প্রয়োজনীয় সকল চেষ্টা করা।
  3. আল্লাহর হুকুমে সবসময় খুশি থাকা।
  4. শুধুমাত্র হালাল কিংবা বৈধ বিষয়ে ইস্তেখারা করা।
  5. তাওবা করা
  6. অন্যায় করে কিছু গ্রহণ না করা
  7. হারাম উপার্জন না করা
  8. হারাম মাল ভক্ষণ না করা
  9. যে সব বিষয়গুলোর নিয়ন্ত্রণ নিজ হাতে অর্থাৎ বিষয়টি তার ইচ্ছার অধীনে সেসব বিষয়ে ইস্তেখারা না করা।

ইস্তেখারার দোয়া

প্রিয় পাঠক বন্ধু আপনি কি জানেন ইস্তেখারার কি এর দোয়া কোনটি কখন কিভাবে আমল করতে হবে ? না জেনে থাকলে এখান থেকে জেনে নিতে পারেন আপনাদের সহযোগিতায় ইসলামিক সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য প্রদান করে থাকি আমরা। এক্ষেত্রে আপনাদের সামনে প্রথমেই ইস্তেখারার দোয়া নিয়ে উপস্থিত হয়েছি প্রথমেই দোয়া সম্পর্কে জানুন। আপনাদের সহযোগিতায় আমরা দোয়া বাংলা উচ্চারণ দেওয়ার চেষ্টা করেছি অনেকেই আরবি পড়তে অভ্যস্ত নয় আরবি ধরতে পারেন না পড়তে পারেন না এ ক্ষেত্রে দোয়া সহ বিভিন্ন বিষয়ে বাংলায় পড়তে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাই তো এমন ব্যক্তিদের কথা চিন্তা করে আমরা ইস্তেখারার দোয়া গুলো বাংলায় প্রদান করেছি ।

জাবির ইবনে ‘আবদুল্লাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিত,
তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) আমাদেরকে যেভাবে কুরআনের সূরা শিক্ষা দিতেন, ঠিক সেভাবে প্রতিটি কাজে আমাদেরকে ইস্তিখারা (কল্যাণ প্রার্থনা) শিক্ষা দিতেন। তিনি বলতেন, যখন তোমাদের কেউ কোন কাজের ইচ্ছা করে তখন সে যেন ফরয ছাড়া দুই রাক’আত নফল নামায আদায় করে নেয়, অতঃপর নিম্নের দোয়াটি বলেন।

نويت ان اصلي لله تعالى ركعتى صلواة الاستخارة نفل متوجها إلى جهة الكعبة الشريفة الله اكبر
বাংলায় উচ্চারণ:- নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহি তাআলা রাকয়াতাই সালাতিল ইস্তেখারাতি নাফলা, মুতাওয়াজজিহান ইলা জিহাতিল কা’বাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

অর্থ/বাংলায় নিয়াত:-
“আমি দুই রাকাত ইস্তেখারা নফল নামাজের নিয়াত করছি আল্লাহ তা’আলার জন্য, মুখ আমার কা’বা শরিফের দিকে আল্লাহু আকবার” ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: