টিপস

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক | লাইসেন্স করার নিয়ম ও অনলাইনে আবেদন

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক । ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য অনলাইন আবেদনসহ এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য রয়েছে এই পোস্টে। সুতরাং যারা ড্রাইভিং লাইসেন্স সংক্রান্ত তথ্য জানতে চান তাদের জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পোষ্ট। যারা লাইসেন্স চেক অথবা লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই এই পোস্টের সাথে থেকে এ বিষয়ে বিস্তারিত জ্ঞান অর্জন করবেন। আমরা আশাবাদী এখান থেকে এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের মাধ্যমে আপনি উপকৃত হবেন। অনেকেই লাইসেন্স করার জন্য অনলাইনে আবেদন করার প্রক্রিয়াটি অনুসন্ধান করেন। আবার অনেকেই লাইসেন্স চেক করার নিয়ম সম্পর্কে জানার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন। অর্থাৎ যে ক্ষেত্রেই অনলাইনে অনুসন্ধান করুন না কেন এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনি লাইসেন্স সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে পারবেন।

সুতরাং ড্রাইভিং লাইসেন্স সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্যের জন্য পুরো পোস্টের সাথে থাকুন। ড্রাইভিং লাইসেন্স একজন চালক এর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়ে আমরা সকলেই জানি। অবশ্যই এই লাইসেন্স চেক এবং লাইসেন্সের আবেদন করার প্রক্রিয়াটি আমরা জেনে রাখবো। এর ফলে এ বিষয়ে পরবর্তী সময়ে কোন প্রকার সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না বলে মনে করছি।

ড্রাইভিং লাইসেন্স কি

অনেকের মনেই এই প্রশ্নটি রয়েছে ড্রাইভিং লাইসেন্স কি ? এই প্রশ্নটিই আপনার মনে থেকে থাকলে এখান থেকে এর উত্তর জেনে নিন। এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনার কিছু নেই সহজ ভাষায় ড্রাইভিং লাইসেন্স বলতে মোটরযান অধ্যাদেশ অনুযায়ী সড়কে সর্বসাধারণের ব্যবহার্য জায়গায় গাড়ি চালানোর অনুমতি পত্র। মনে হয় বিষয়টি বুঝতে আপনাদের সমস্যা হয়েছে তাই আরেকটু সহজভাবে বলতে গেলে। গাড়ি চালানোর অনুমতি পত্র টিকেই ড্রাইভিং লাইসেন্স বলা হয় আশা করি বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন। এই ড্রাইভিং লাইসেন্স কিভাবে করতে হয় এবং এটি সঠিক হয়েছে কিনা এই বিষয়ে চেক করার পদ্ধতি তুলে ধরা হবে এই পোস্টে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম

এখানে আমরা লাইসেন্স করার নিয়ম সম্পর্কে জানব। খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় আলোচনা হচ্ছে সুতরাং মনোযোগ সহকারে পড়বেন। আশা করি এখান থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পারবেন। যারা নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য অনলাইনে এ বিষয়ে জানার চেষ্টা করছেন তাদের জন্য খুবই সহযোগী একটি পোস্ট। ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য কিছু নিয়ম রয়েছে । এছাড়াও প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য অর্থাৎ কাগজপত্র ব্যবহার রয়েছে এখানে কি কাগজপত্র প্রদান করতে হবে এই বিষয়ে নিচে আলোচনা করা হয়েছে। অবশ্যই এই সকল তথ্য সম্পর্কে জেনে নেবেন।

লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

১। নির্ধারিত ফরমে আবেদন।

২। রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক মেডিকেল সার্টিফিকেট।

৩। ন্যাশনাল আইডি কার্ড / জন্ম সনদ/পাসপোর্ট এর সত্যায়িত ফটোকপি।

৪। নির্ধারিত ফী, ১ ক্যাটাগরি-৩৪৫/-টাকা ও ২ ক্যাটাগরি-৫১৮/-টাকা বিআরটিএ’র নির্ধারিত ব্যাংকে (ব্যাংক এর তালিকা www.brta.gov.bd তে পাওয়া যাবে) জমাদানের রশিদ।

৫। সদ্য তোলা ০৩ কপি স্ট্যাম্প ও ০১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স:

 

• লিখিত, মৌখিক ও ফিল্ড টেস্ট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর পুনরায় একটি নির্ধারিত ফরমে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও ফী প্রদান করে স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য সংশিস্নষ্ট সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে।
• গ্রাহকের বায়োমেট্রিক্স (ডিজিটাল ছবি, ডিজিটাল স্বাক্ষর ও আঙ্গুলের ছাপ) গ্রহণপূর্বক স্মার্ট কার্ড ইস্যু করা হয়।
• স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রিন্টিং সম্পন্ন হলে গ্রাহককে এসএমএস এর মাধ্যমে তা গ্রহণের বিষয়টি জানিয়ে দেয়া হয়।

স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

১। নির্ধারিত ফরমে আবেদন।

২। রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক মেডিকেল সার্টিফিকেট।

৩। ন্যাশনাল আইডি কার্ড / জন্ম সনদ/পাসপোর্ট এর সত্যায়িত ফটোকপি।

৪। নির্ধারিত ফি (পেশাদার- ১৬৭৯/-টাকা ও অপেশাদার- ২৫৪২/-টাকা) বিআরটিএ’র নির্ধারিত ব্যাংকে জমাদানের রশিদ।

৫। পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য পুলিশি তদন্ত প্রতিবেদন।

৬। সদ্য তোলা ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

সূত্র: বিআরটিসি ওয়েবসাইট।

অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদন

আপনি কি ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে চান ? এর জন্য আপনাকে অনলাইন আবেদনের নিয়ম সম্পর্কে জানতে হবে। আবেদনের জন্য কিছু নির্দেশনা রয়েছে এগুলো মেনে আপনাকে আবেদন করতে হবে এর পরেই আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে। আপনারা অবশ্যই ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদনের প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানবেন এবং কি নির্দেশনাবলী রয়েছে সেই নির্দেশনা বলী মেনে আবেদন করবেন। আবেদন করার ক্ষেত্রে কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র রয়েছে যা আপনারা উপরে জেনেছেন এখানে আবারো তুলে ধরা হচ্ছে। অবশ্যই নিচের দেওয়া তথ্যগুলো পড়ুন।

  • ড্রাইভিং লাইসেন্সের পূর্বশর্ত হলো লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স।
  • ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদনকারীর ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণী পাশ।
  • অপেশাদার এর জন্য ন্যূনতম ১৮ বছর এবং পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য বয়স ন্যূনতম ২১ বছর হতে হবে।
  • মানসিক ও শারীরিকভাবে সুস্থ থাকতে হবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক

চেক করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারবেন এখানে। অনেকেই এই পদ্ধতিটি কে জটিল ও কঠিন মনে করে থাকেন। এই সকল ব্যক্তিদের উদ্দেশ্যে বলা যাচ্ছে এটি খুবই সহজ একটি পদ্ধতি খুব সহজেই আপনি আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করে নিতে পারবেন। ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার জন্য খুব সুন্দর একটি পদ্ধতি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব। আশা করি এই পদ্ধতি অবলম্বন করে আপনি খুব সহজেই আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করে নিতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে গুগল প্লে স্টোর থেকে একটি অ্যাপস ইন্সটল করতে হবে এবং অ্যাপসটিতে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়ে সাইন আপ করতে হবে। বিস্তারিত তথ্য গুলো নিচে দেওয়া রয়েছে।

অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক এর জন্য আপনি প্লেস্টোর হতে এই এ্যাপটি আপনার মোবাইলে ইনস্টল করুন: ডাউনলোড

Back to top button
Close