Skip to content

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে উক্তি, বঙ্গবন্ধুর কিছু স্মরণীয় উক্তি

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে উক্তি

আসসালামু আলাইকুম সবাইকে আমাদের ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন। আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন। আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহর রহমতে আমরাও ভালো আছি। বন্ধুরা আজকে আমরা আপনাদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে বেশকিছু উক্তি তুলে ধরবো।আশা করি আমাদের লেখাটি আপনাদের সবার ভালো লাগবে।

বঙ্গবন্ধু হলেন বাঙালি জাতির জনক। তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি। তিনি ১৯২০ সালে 17 ই মার্চ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন।তার পিতার নাম লুৎফর রহমান এবং মাতার নাম সায়রা খাতুন। তিনি বাবা-মায়ের সাতজন সন্তানের মধ্যে তৃতীয় সন্তান ছিলেন ।ছোটবেলায় তিনি ছিলেন বাংলার খোকা। বড় হয়ে তিনি হলেন বাংলার বন্ধু। ছোটবেলা থেকেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ছিলেন সাহসী ও প্রতিবাদী। তার ছোটবেলা থেকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ এবং নিপীড়িত অত্যাচারিত গরিব মানুষদের প্রতি ভালোবাসা তাকে রাজনীতিতে নিয়ে এসেছে। স্কুল জীবন থেকেই তিনি রাজনীতি করতেন এবং পড়াশোনা শেষ করে তিনি সরাসরিভাবে রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের মূল উদ্দেশ্য ছিল বাঙালি জাতির সমস্ত অধিকার আদায় করা এবং বাংলাদেশকে স্বাধীন সার্বভৌমত্ব রাষ্ট্র হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা।

প্রতিটি বাঙালি কাছে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন হলো একটি আনন্দের দিন। বাংলার হাজার বছরের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু শুধু একজনই ছিলেন যার জন্ম না হলে হয়তো স্বাধীন বাংলাদেশের জন্ম হতো না। তাইতো বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন কে শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ চিরকাল মানুষের মনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। বঙ্গবন্ধুর দেশপ্রেমের সুমহান আদর্শ প্রতিটি বাঙালির হৃদয়ে প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে উক্তি

অনেকেই আছেন যারা অনলাইনে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে উক্তি খুঁজে বেড়াচ্ছেন তাদের জন্য আমাদের আজকের এই পোষ্ট। বন্ধুরা এখানে আমরা আপনাদের জন্য বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে বিখ্যাত মনীষীদের বেশকিছু উক্তি তুলে ধরবো।আপনারা চাইলে আমাদের উক্তি গুলো সংগ্রহ করে বাস্তব জীবনে কাজে লাগাতে পারেন এবং আপনার ফেসবুক বা সোশ্যাল মিডিয়ায় স্ট্যাটাস হিসেবে শেয়ার করতে পারবেন। আমাদের উক্তি গুলো আপনাদের মনে বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা বোধ জাগিয়ে তুলবে। নিচে আমাদের বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে বিখ্যাত মনীষীদের উক্তি গুলো তুলে ধরা হলোঃ

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন নিয়ে উক্তি দেয়া হয়েছে আমাদের পোস্টে। তাই নিচে থেকে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের উক্তি দেখে নিন। আশা করি এগুলো আপনাদের অনেক ভালো লাগবে। শেখ হাসিনা উক্তি আমাদের পোস্টের নিচে দেওয়া হয়েছে।

আমি আমার জন্মদিনের উৎসব পালন করি না। এই দুঃখিনী বাংলায় আমার জন্মদিনই-বা কি আর মৃত্যুদিনই-বা কি?

গণআন্দোলন ছাড়া, গণবিপ্লব ছাড়া বিপ্লব হয় না।

জনগণকে ছাড়া, জনগণকে সংঘবদ্ধ না করে, জনগণকে আন্দোলনমুখী না করে এবং পরিস্কার আদর্শ সামনে না রেখে কোন রকম গণআন্দোলন হতে পারে না।

আন্দোলন মুখ দিয়ে বললেই করা যায় না। আন্দোলনের জন্য জনমত সৃষ্টি করতে হয়। আন্দোলনের জন্য আদর্শ থাকতে হয়। আন্দোলনের জন্য নিঃস্বার্থ কর্মী হতে হয়। ত্যাগী মানুষ থাকা দরকার। আর সর্বোপরি জনগণের সংঘবদ্ধ ও ঐক্যবদ্ধ সমর্থন থাকা দরকার।

অযোগ্য নেতৃত্ব, নীতিহীন নেতা ও কাপুরুষ রাজনীতিবিদদের সাথে কোন দিন একসাথে হয়ে দেশের কাজে নামতে নেই। তাতে দেশসেবার চেয়ে দেশের ও জনগণের সর্বনাশই বেশি হয়।

বঙ্গবন্ধুর কিছু স্মরণীয় উক্তি

দেশের সাধারণ মানুষ, যারা আজও দুঃখী, যারা আজও নিরন্তর সংগ্রাম করে বেঁচে আছে, তাদের হাসি-কান্না, সুখ-দুঃখকে শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতির উপজীব্য করার জন্য শিল্পী, সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিসেবীদের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

সাংস্কৃতিক স্বাধীনতা ছাড়া রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্বাধীনতা অর্থহীন। তাই মাটি ও মানুষকে কেন্দ্র করে গণমানুষের সুখ, শান্তি ও স্বপ্ন এবং আশা-আকাঙ্খাকে অবলম্বন করে গড়ে উঠবে বাংলার নিজস্ব সাহিত্য-সংস্কৃতি।

বাঙ্গালি জাতীয়তাবাদ না থাকলে আমাদের স্বাধীনতার অস্তিত্ব বিপন্ন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: