Skip to content

বিশেষ্য পদ কাকে বলে ? বিশেষ্য পদ কত প্রকার ও কি কি

বিশেষ্য পদ কাকে বলে

বিশেষ্য পদ কাকে বলে ? এবং বিশেষ্য পদ কত প্রকার ও কি কি বিশেষ্য পদের প্রকারভেদ সমস্ত বিষয় সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার লক্ষ্যে আজকের আলোচনা নিয়ে উপস্থিত হয়েছি আপনাদের মাঝে। অনলাইন থেকে শিক্ষা গ্রহণের জন্য অনেকেই ব্যাকরণ এর বিভিন্ন অংশ সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনের লক্ষ্যে অনুসন্ধান করে থাকেন। তাই আজকের আলোচনায় আমরা কথা বলব বিশেষ্য পদ সম্পর্কে। শুধু বিশেষ্য পদ নয় বিশেষ্য পদের সংখ্যা বিশেষ্য পদ কত প্রকার ও কি কি উদাহরণ সহ সমস্ত বিষয় সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হবে এখানে।

সুতরাং আগ্রহ নিয়ে আমাদের সাথে থাকুন আশা করছি আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হবো আমরা। শিক্ষাক্ষেত্রে অনলাইনের ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় অনলাইন ভিত্তিক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করে থাকি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। এক্ষেত্রে বলতে পারি শিক্ষার্থীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ওয়েবসাইট এটি শিক্ষা ও জীবন সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য প্রশ্ন-উত্তর সম্পর্কে জানতে পারবেন এখান থেকে।

বিশেষ্য পদ কাকে বলে ?

প্রিয় পাঠক বন্ধু আপনারা যারা বিশেষ্য পদ সম্পর্কে জানতে আগ্রহী জানার জন্য অনলাইনে অনুসন্ধান করেছেন তারা অবশ্যই আজকের আলোচনার মাধ্যমে উপকৃত হবে নিচে আমরা বিশেষ্য পদের সংখ্যা দিয়ে সহযোগিতা করার লক্ষ্যে উপস্থিত হয়েছে বিশেষ পদের সংখ্যা প্রদান করা হচ্ছে।

বাক্যমধ্যে ব্যবহৃত যে পদ দ্বারা কোন ব্যাক্তি, জাতি,সমষ্টি, বস্তু,স্থান,কাল, ভাব, কর্ম বা গুণের নাম বোঝানো হয় তাদের বিশেষ্য পদ বলে।

বিশেষ্য পদ কত প্রকার ও কি কি

আপনারা যারা বিশেষ্য পদ সম্পর্কে জানার জন্য অনলাইনে এসেছেন এবং এর পাশাপাশি বিশেষ্য পদের প্রকারভেদ ও প্রকারভেদ গুলো উদাহরণসহ সহজভাবে মনে রাখার জন্য যে বিষয়গুলো জানা প্রয়োজন সেই বিষয় সম্পর্কে তথ্য প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করেছি আমরা নিচে বিশেষ্য পদের প্রকারভেদ সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

বিশেষ্য পদ ৬ প্রকার। যথাঃ-

  • সজ্ঞা বা নাম বাচক বিশেষ্য
  • জাতিবাচক বিশেষ্য
  • বস্তুবাচক বা দ্রব্যবাচক বিশেষ্য
  • সমষ্টিবাচক বিশেষ্য
  • ভাববাচক / ক্রিয়াবাচক বিশেষ্য
  • গুণবাচক বিশেষ্য

জাতিবাচক বিশেষ্য

যে পদ দ্বারা কোন একজাতীয় প্রাণী বা পদার্থের সাধারণ নাম বোঝায়, তাকে জাতিবাচক বিশেষ্য বলে। যেমন – মানুষ, গরু,পাখি,গাছ,নদী,ইংরেজ ইত্যাদি।

বস্তুবাচক বা দ্রব্যবাচক বিশেষ্য

যে পদ দ্বারা কোন উপাদানবাচক পদার্থের নাম বোঝায় তাকে বস্তুবাচক বা দ্রব্যবাচক বিশেষ্য বলে। যেমন – বই, খাতা, কলম, থালা, বাটি, চাল, চিনি, লবণ ইত্যাদি।

সমষ্টিবাচক বিশেষ্য

যে পদ দ্বারা একজাতীয় ব্যক্তি, বস্তু বা প্রাণীর সমষ্টি বোঝাশ, তাকে সমষ্টিবাচক বিশেষ্য বলে। যেমন – জনতা, সমিতি,দল, পাল, মালা, সারি, মাহফিল, ঝাঁক , বহর ইত্যাদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: