Skip to content

ব্যাকরণ কি বা কাকে বলে ? কত প্রকার ও কি কি

ব্যাকরণ কি বা কাকে বলে

আজকের আলোচনায় আমরা আপনাদের সামনে ব্যাকরণ কি বা কাকে বলে অর্থাৎ ব্যাকরণ এর সংজ্ঞা তুলে ধরব। শিক্ষাক্ষেত্রে অনলাইনের ব্যবহার ব্যাপক এক্ষেত্রে অনলাইন ভিত্তিক অনেকেই বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর অনুসন্ধান করে থাকেন। তাইতো আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনাদের বিভিন্ন শিক্ষণীয় অর্থাৎ গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন গুলোর উত্তর প্রদানের চেষ্টা করেছি। সুতরাং আপনারা বাংলা সহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর গুলো পাবেন আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। আজকে আমরা বাংলা বিষয়ের উপর অর্থাৎ বাংলা ব্যাকরণ এর উপর গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্নের উত্তর নিয়ে উপস্থিত।

আজকের আলোচনায় আপনি জানতে পারবেন ব্যাকরণ কি বা কাকে বলে ও ব্যাকরণ কত প্রকার । প্রতিদিন অনেক শিক্ষার্থী অনলাইনে এই প্রশ্নের উত্তর অনুসন্ধান করে থাকেন তাই তো আমরা আগ্রহ প্রকাশ করেছে এই উত্তর দিয়ে আপনাদের সহযোগিতার জন্য জন্য উপস্থিত হয়েছি আপনাদের মাঝে।

ব্যাকরণ কি বা কাকে বলে ?

ব্যাকরণ এর গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন হচ্ছে এটি সুতরাং আপনারা যারা এই প্রশ্নের উত্তর অনুসন্ধান করছেন তাদেরকে সহযোগিতার লক্ষ্যে এখানে আমরা এর উত্তর প্রদান করব। আশা রাখছি এর মাধ্যমে আপনি এই উত্তর সম্পর্কে জানতে পারবেন পাশাপাশি ব্যাকরণ কত প্রকার ও কি কি সকল বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য প্রদান করা হচ্ছে।

ব্যাকরণ কাকে বলে? ব্যাকরণ হলো ভাষার সংবিধান। এটি সংস্কৃত শব্দ। এটিকে বিশ্লেষণ করলে পাই, বি + আ + √কৃ + অনযে শাস্ত্রে কোন ভাষার বিভিন্ন উপাদানের প্রকৃতি ও স্বরূপের বিচার বিশ্লেষণ করা হয় এবং বিভিন্ন উপাদানের সম্পর্ক নির্ণয় ও প্রয়োগবিধি বিশদভাবে আলোচিত হয় তাকে ব্যাকরণ বলে।

ব্যাকরণ কত প্রকার ও কি কি

অনেক শিক্ষার্থী রয়েছেন যারা জানেননা ব্যাকরণ কি অথবা ব্যাকরণ কত প্রকার । এক্ষেত্রে আজকের পোস্টে আমরা এই বিষয় সম্পর্কে সঠিক তথ্য প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করেছি আপনাদের মাঝে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে ব্যাকরণ কি অথবা কত প্রকার । সুতরাং আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সহযোগিতা নিতে পারেন আপনি মুখস্ত করতে পারেন ব্যাকরণ সম্পর্কিত আজকের প্রশ্নের উত্তর।

ব্যাকরণের প্রকারভেদ

ড. সুকুমার সেন ব্যাকরণকে ৩ ভাগে ভাগ করেছেন। যথা-

  • বর্ণনামূলক ব্যাকরণ
  • ঐতিহাসিক ব্যাকরণ
  • তুলনামূলক ব্যাকরণ

ড. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় ব্যাকরণকে ৪ ভাগে ভাগ করেছেন। এগুলো হলো –

  • বর্ণনামূলক ব্যাকরণ
  • ঐতিহাসিক ব্যাকরণ
  • তুলনামূলক ব্যাকরণ
  • দার্শনিক-বিচারমূলক ব্যাকরণ

ব্যাকরণের পরিধি বা আলোচ্য বিষয়

প্রত্যেক ভাষারই ৪ টি মৌলিক অংশ থাকে। যথাঃ-

  • ধ্বনি
  • শব্দ
  • বাক্য
  • অর্থ

ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ ব্যাকরণের পরিধিকে ৫ টি ভাগে ভাগ করেছেন। যথাঃ-

  • ধ্বনি প্রকরণ
  • শব্দ প্রকরণ
  • বাক্য প্রকরণ
  • ছন্দ প্রকরণ ও
  • অলঙ্কার প্রকরণ।

সব ভাষার ব্যাকরণেই প্রধানত চারটি বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এগুলো হলো –

  • ধ্বনিতত্ত্ব
  • শব্দতত্ত্ব বা রূপতত্ত্ব
  • বাক্যাতত্ত্ব বা পদক্রম এবং
  • অর্থতত্ত্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: