উক্তি

সৎকাজের উক্তি, বাণী, ক্যাপশন ও স্ট্যাটাস

আসসালামু আলাইকুম সবাইকে আমাদের ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন। আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন। বন্ধুরা আজকে আমরা আপনাদের মাঝে সৎকাজ নিয়ে উক্তি এবং সৎকাজ নিয়ে সামগ্রিক আলোচনা তুলে ধরবো। আশা করি আমাদের পোস্টটি সবার ভালো লাগবে।

সৎকাজ বলতে সাধারণত ভালো কাজ গুলোকে বোঝায়। সৎকাজ মানব জীবনের একটি মৌলিক গুণ যা মানুষের চরিত্রকে উন্নত করে তোলে। সৎ কাজের মাধ্যমেই মানুষ দুনিয়া ও আখিরাতের জীবনে সফলতা লাভ করবে। আল্লাহ তাআলা সৎকাজের আদেশ দিয়েছেন। সৎ কাজ করলে আল্লাহ তায়ালা খুব খুশি হন। সৎ কাজের মাধ্যমে মানুষ সকলের প্রিয় পাত্র হয়ে উঠেন ।ইসলামে সৎ কাজের প্রতি পুরোপুরি ভাবে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে এবং অসৎ কাজ থেকে বিরত থাকার কথা বলা হয়েছে।

সৎকাজ মানুষের জীবনকে আলোকিত করে তোলে। সৎ কাজের মাধ্যমে মানুষ মৃত্যুর পরেও পৃথিবীতে চিরকাল স্মরণীয়-বরণীয় হয়ে থাকেন। যারা সৎ কাজ করে মানুষ তাদেরকে সম্মান করে এবং ভালোবাসে। সৎ কাজের মাধ্যমেই মানুষ মানবকল্যাণে অবদান রাখতে পারে। সৎকাজ শুধু ব্যক্তি বা সমাজ জীবনে গুরুত্বপূর্ণ নয় বরং এটি আদর্শ জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই আমাদের সবার উচিত সৎ পথে চলা এবং সৎ কাজের প্রতি নিজেকে নিয়োজিত রাখা। তাহলে জীবন সুন্দর ও সার্থক হবে।

সৎকাজের উক্তি

আপনি কি অনলাইনে সহানুভূতি নিয়ে উক্তি খুঁজছেন তাহলে আপনি সঠিক ওয়েবসাইটে এসেছেন। বন্ধুরা এখানে আমরা আপনাদের জন্য সৎকাজ নিয়ে বিখ্যাত মনীষীদের বেশ কিছু উক্তি তুলে ধরবো।আপনি চাইলে আমাদের এই উক্তিগুলো সংগ্রহ করে আপনার বন্ধুবান্ধব ও পরিচিত জনদের মাঝে শেয়ার করতে পারবেন। এমনকি আপনার ফেসবুক বা সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্যাপশন বা স্ট্যাটাস হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। আপনার শেয়ারের ফলে অনেকেই সৎ কাজের প্রতি অনুপ্রাণিত হবেন এবং অসৎ কাজ থেকে বিরত থাকবেন এবং অসৎ কাজকে ঘৃণা করবেন। নিচে আমাদের সৎ কাজ নিয়ে উক্তি গুলো তুলে ধরা হলোঃ

যারা বিশ্বাস স্থাপন করে এবং সৎকর্ম সম্পাদন করে, তাদের জন্যে রয়েছে সুসংবাদ এবং মনোরম প্রত্যাবর্তণস্থল।

— সূরা আর-রাদ- আয়াত: ২৯

নিশ্চয় আল্লাহ তাদের সঙ্গে আছেন, যারা পরহেযগার এবং যারা সৎকর্ম করে।

— সূরা আন নাহল- আয়াত: ১২৮

ভালো কাজের ফলাফল ভালো কিছুই হয় । আর খারাপ কাজের ফলাফল খারাপই হয় ।

— অজানা

যারা বিশ্বাস স্থাপন করে, এবং সৎকর্ম সম্পাদন করে, আল্লাহ তাদেরকে ক্ষমা ও মহান প্রতিদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

— সূরা আল মায়িদাহ- আতাতু

যে একটি সৎকর্ম করবে, সে তার দশগুণ পাবে এবং যে, একটি মন্দ কাজ করবে, সে তার সমান শাস্তিই পাবে। বস্তুতঃ তাদের প্রতি জুলুম করা হবে না।

— সূরা আল আনআম- আয়াত: ১৬

যারা ঈমান এনেছে এবং সৎকাজ ( ভালো কাজ ) করেছে , তারাই জান্নাতের অধিবাসী । তারা সেখানেই চিরকাল থাকবে ।

— সূরা বাকারা, আয়াত ৮২

যারা বিশ্বাস স্থাপন করে এবং সৎকর্ম ( ভালো কাজ ) সম্পাদন করে- আমি সৎকর্মশীলদের পুরস্কার নষ্ট করি না।

— সূরা আল কাহফ- আয়াত: ৩০

যারা বিশ্বাস স্থাপন করে ও সৎকর্ম সম্পাদন করে, তাদের অভ্যর্থনার জন্যে আছে জান্নাতুল ফেরদাউস।

— সূরা আল কাহফ- আয়াত: ১০৭

হে মুমিনগণ ! তোমরা রুকু কর, সেজদা কর, তোমাদের পালনকর্তার এবাদাত কর এবং সৎকাজ সম্পাদন কর, যাতে তোমরা সফলকাম হতে পার ।

— সূরা আল হাজ্জ, আয়াত- ৭৭

যারা ঈমান এনেছে এবং সৎকাজ করেছে । তাদের প্রাপ্য পরিপুর্নভাবে দেয়া হবে । আর আল্লাহ অত্যাচারীদেরকে ভালোবাসেন না ।

— সূরা আল ইমরান, আয়াত- ৫৭

আর ক্ষমা করার অভ্যাস গড়ে তোল, সৎকাজের নির্দেশ দাও এবং মুর্খ জাহেলদের থেকে দূরে থাক ।

— সূরা আল আরাফ, আয়াত- ১৯৯

হে নবী (সাঃ), যারা ঈমান এনেছে এবং সৎ কাজ সমূহ করেছে, আপনি তাদেরকে এমন জান্নাতের সুসংবাদ দিন, যার পাদদেশে নহরসমূহ প্রবাহমান থাকবে ।

— সূরা আল-বাকারা, আয়াত ২৫

নিশ্চয় আল্লাহ তাদের সঙ্গে আছেন, যারা পরহেযগার এবং যারা সৎকর্ম করে।

— সূরা আন নাহল- আয়াত: ১২৮

Back to top button
Close