অ্যাসাইনমেন্ট

৬ষ্ঠ শ্রেণীর কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১ – ৩য় সপ্তাহের

৬ষ্ঠ শ্রেণীর কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১ – ৩য় সপ্তাহের

৬ষ্ঠ শ্রেণীর কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১

নতুন বছর এবং নতুন সপ্তাহের জন্য ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট উত্তর দেয়া হয়েছে আজকের এই পোস্টে। প্রত্যেক শিক্ষার্থী যাতে তাদের ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট এ ভালো নাম্বার পেতে পারে। তাই আমরা কৃষিশিক্ষা অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলী দ্বারা ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট উত্তর  তৈরি করেছে।

শ্রেণিঃ ষষ্ঠ

বিষয়ঃ কৃষি শিক্ষা

এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের ক্রমঃ এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ-০১;

অধ্যায় ও অধ্যায়ের শিরোনামঃ প্রথম অধ্যায়, আমাদের জীবনে কৃষি;

পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত পাঠ নম্বর ও শিরােনাম/ বিষয়বস্তু: পাঠ ১: কৃষির পরিধি ও পরিসর;

এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজঃ

অ্যাসাইনমেন্ট ১: ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা গ্রামের আদর্শ কৃষক আবদুর রহিম নিজ বাড়িতে ২টি গাভী, ১টি ষাঁড়, ২০টি হাঁস ও ২০টি মুরগি পালন করেন।

এ ছাড়াও বাড়ির আঙ্গিনায় বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি ফলমূল এবং পুকুরে নানা ধরনের মাছ চাষ করে থাকেন। তিনি মনে করেন মৌলিক চাহিদাগুলাের অধিকাংশই তার কার্যক্রম থেকে পেয়ে থাকেন।

তুমি কী মনে কর মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলাের সব কয়টি কৃষি কার্যক্রমের মাধ্যমে পূরণ করা সম্ভব? যুক্তি দ্বারা তােমার মতামত উপস্থাপন কর।

অ্যাসাইনমেন্ট লেখার নির্দেশনাঃ

১) শিক্ষার্থীরা পাঠ্য বইয়ের ১ম অধ্যায়ের পাঠ ১ এর আলােকে মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলাে শনাক্ত করবে।

২) শিক্ষার্থীরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রয়ােজনীয় তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করবে।

৩) শিক্ষার্থীরা নিজ পরিবারের সদস্যদের সাথে আলােচনা করে মৌলিক চাহিদাগুলাে সম্পর্কে জানবে।

৪) নিজ বাড়িতে বিদ্যমান গাছপালার তালিকা তৈরি করে সেগুলাের ব্যবহার/উপযােগিতা সম্পর্কে জানবে।

৫) কোনাে তথ্য উৎস থেকে অবিকল(হুবহু)। কোনাে তথ্য লিখে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেয়া যাবে না।

৬) নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে হবে।

৭) শিক্ষার্থীদের নিজ হাতে অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে হবে।

৮) শিক্ষার্থীদেরকে তাদের পিতামাতা, ভাইবােন, আত্মীয়স্বজন, শিক্ষকগণ লিখে দিলে তা বাতিল হবে।

৯) যে কোনাে কাগজ ব্যবহার করা যাবে।

১০) ১ম পৃষ্ঠায় নাম, শ্রেণি, রােল, বিষয়, অ্যাসাইনমেন্টের শিরােনাম স্পস্টভাবে লিখতে হবে।

এ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন রুবিক্সঃ

অতি উত্তমঃ

১. সঠিকভাবে মৌলিক চাহিদাগুলাের নাম লিখতে পারলে;
২. মৌলিক চাহিদাগুলাের কোনটি কোন উৎস হতে পাওয়া যায় তা পাঠ্যপুস্তকের সাথে সংগতিপূর্ণ থাকলে;
৩. লেখায় লক্ষ্যণীয়মাত্রায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলতা থাকলে;
উত্তমঃ

১. অধিকাংশ (৩/৪ টি) চাহিদাগুলাের নাম লিখতে পারলে;
২. মৌলিক চাহিদাগুলাের কোনটি কোন উৎস হতে পাওয়া যায় তা পাঠ্যপুস্তকের সাথে অধিকাংশই সংগতিপূর্ণ থাকলে;
৩. লেখায় আংশিকমাত্রায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলতা থাকলে;
ভালােঃ

১. কমপক্ষে ২টি মৌলিক চাহিদার নাম লিখতে পারলে;
২. মৌলিক চাহিদাগুলাের কোনটি কোন উৎস হতে পাওয়া যায় তা পাঠ্যপুস্তকের সাথে আংশিকভাবে সংগতিপূর্ণ থাকলে;
৩. লেখায় সামান্যমাত্রায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলতা;
অগ্রগতি প্রয়ােজনঃ

১. মৌলিক চাহিদাগুলাের নাম লিখতে না পারলে;
২. মৌলিক চাহিদাগুলাের কোনটি কোন উৎস হতে পাওয়া যায় তা পাঠ্যস্তকের;

৬ষ্ঠ‌ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট প্রশ্নের সমাধান ২০২১

সবাই ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট প্রশ্নের উত্তর জানতে অনুসন্ধান করে। তাই আজকের এই পোস্টে ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন এবং উত্তর দেয়া হয়েছে। নিচে থেকে দেখে নিন নতুন সপ্তাহের ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা উত্তর। এখানে আমরা প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর সঠিকভাবে মূল্যায়ন করে তুলে ধরেছি। পাঠ্যবই থেকে প্রতিটি প্রশ্নের সঠিক উত্তর আমরা বের করেছি। তাই ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা পাঠ্যবই অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান দেখে নিন।

উত্তরঃ

আমি মনে করি মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলাের সব কয়টি কৃষি কার্যক্রমের মাধ্যমে পূরণ করা সম্ভব। নিচে যুক্তি দ্বারা আমার মতামত উপস্থাপন কর হলো।

মানুষের মৌলিক ৫টি। এই মৌলিক চাহিদাগুলো হলোঃ

  • খাদ্য
  • বস্ত্র
  • বাসস্থান
  • চিকিৎসা
  • শিক্ষা

খাদ্যঃ মানুষের বেঁচে থাকার জন্য অবশ্যই খাবারের প্রয়োজন আর এই খাবারগুলো আমরা কৃষি থেকেই পেয়ে থাকি।যেমন, ভাতের জন্য চাল, রুটির জন্য গম, মাছ, মাংস, শাকসবজি , ফলমূল ইত্যাদি সবই কৃষি থেকে পেয়ে থাকি । এবং আমরা উদ্দীপকে দেখেছি আব্দুর রহিম কৃষক তার বাড়িতে এসব চাষ করেন। তাই তিনি এই চাহিদাটা এখান থেকে পূরণ করতে পারবেন।

বস্ত্রঃ আমরা আমাদের শরীর ঢাকার জন্য পুরোপুরি কৃষির উপর নির্ভরশীল | কেননা আমাদের পরিধেয় প্রায় সব পোষাকের সুতা কোনো না কোনো কৃষি থেকে তৈরি হয়েছে | যেমন, পাট, তুলা, রেশম, নলখাগড়া ইত্যাদি থেকে পাওয়া সূতা যা দিয়ে কাপড় তৈরি হয়। অন্য দিকে তিনি পশু পালন করেন। যা থেকে চামড়া ও রেশম পাওয়া সম্ভব। চামড়া ও রেশম তার পোশাকের চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম।

বাসস্থানঃ মানুষের বিভিন্ন ধরণের প্রাকৃতিক বিপর্যয়, ক্ষতিকর প্রাণী থেকে রক্ষা এবং পরিশ্রম শেষে শান্তিতে বিশ্রাম বা নিদ্রার জন্য বাসস্থানের বিকল্প নাই | আর এগুলো আমরা কৃষি থেকে পেয়ে থাকি। যেমন, কাঠ, শন, বাঁশ, গোলপাতা ইত্যাদি দিয়ে আমরা ঘর বাড়ি ও আসবাবপত্র তৈরি করি। আব্দুর রহিম কৃষকের তার বাড়ির আঙিনায বিভিন্ন পুরোনো গাছের চাষ করেন। যা তার বাসস্থান তৈরিতে কাজে লাগবে। অতএব বলা যায় বাসস্থানের চাহিদা তিনি তার গাছ দিয়ে করতে পারবেন।

চিকিৎসাঃ প্রাচীনকাল থেকেই আমরা চিকিৎসার জন্য কৃষির উপর নির্ভরশীল | যদিও বর্তমান বিশ্বে চিকিৎসার ক্ষেত্রে আধুনিকতার ছোয়া পড়েছে কিন্তু এরপরেও এখনও প্রাকৃতিকভাবে অসুখের চিকিৎসার চর্চা হয়ে থাকে । আর এর উপাদানগুলো আমরা কৃষি থেকেই পাই। বাসক, বহেরা, হরিতকি, ইত্যাদি হতে জীবন রক্ষাকারী ওসধ তৈরি হয়। অতএব উদ্দীপকের আব্দুর রহিম কৃষক তার চিকিৎসার জন্য চিকিৎসা সামগ্রির চাহিদা বাড়ির আঙিনার উদ্ভিদ তেকে পেতে পারেন।

শিক্ষাঃ শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড | আর এই শিক্ষার জন্য বই পড়তে হয় এবং কাগজে লিখতে হয়| আমরা এই কাগজ কৃষি থেকেই পাই। যেমন; কাঠ ও আখের ছোবড়া, বাশ ইত্যাদি।

উপরের যুক্তিযুক্ত আলোচনা থেকে আমরা নির্দ্বিধায় বলতে পারি মৌলিক চাহিদাগুলাের সব কয়টি কৃষি কার্যক্রমের মাধ্যমে পূরণ করা সম্ভব।

বাংলাদেশ কৃষিভিত্তিক দেশ। আমাদের জীবনে কৃষির গুরুত্ব। অনেক। কৃষি কাজ সারা পৃথিবীতেই আদি, আধুনিক ও অত্যন্ত সম্মানজনক পেশা। কেননা এর মাধ্যমেই পুরাে বিশ্বের মানুষ খাবার খেয়ে বেঁচে থাকেন। আমাদের সব মৌলিক চাহিদাগুলােও (যেমন- খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসা) বিভিন্নভাবে। কৃষিকাজের মাধ্যমে আদিকাল থেকে পূরণ করা হয়। তাই । কৃষিকাজ ও কৃষিশিল্পের পরিধি ব্যাপক ও বিস্তৃত। আমাদের মৌলিক চাহিদাগুলাে পূরণের মাধ্যমে কৃষিকাজ ও কৃষিশিল্পের পরিধি ব্যাখ্যা করা হলাে

 মােলিক চাহিদা-১; খাদ্য ।

মানুষের মৌলিক চাহিদার অন্যতম হলাে খাদ্য। কৃষিই আমাদের খাবারের যােগান দেয়। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রয়ােজনীয় প্রধান খাদ্য হলাে চাল। চাল থেকে ভাত তৈরি করা হয়। এই ভাত বাংলাদেশের মানুষের প্রধান খাবার।। আমাদের প্রতিদিনের জীবনে যেসব শাকসবজি, ফল-ফলাদি খাওয়ার প্রয়ােজন। হয়, যেমন- গম, আলু, ভুট্টা, আম, আনারস, আপেল, পেঁপে (তরকারিতে দেই ও | ফল হিসেবে আমরা খাই), গাজর ইত্যাদি সবই চাষাবাদ করতে হয়। কখনাে বাড়ির আঙিনাতে, কখনাে বাগান করে, আবার কখনাে জমিতে চাষ করে আমরা কৃষকদের মাধ্যমে এই ফসল ও ফলমূলগুলাে উৎপাদন করি। তাই বলা। যায়- শত শত বছর ধরে এই দেশ ও এই অঞ্চলের মানুষের প্রধান খাবারের ‘ চাহিদা কৃষিকাজের মাধ্যমে চাষাবাদ পদ্ধতির মাধ্যমে হয়ে আসছে।

মৌলিক চাহিদা-২: বস্ত্র।

মানুষের নানা ধরনের প্রতিকূল আবহাওয়া, নিরাপত্তা ও নিজের লজ্জা নিবারণ ও সভ্যতার অংশ হিসেবে বস্ত্র পরিধান ও ব্যবহার হয়ে আসছে। এটা মানুষের দ্বিতীয় মৌলিক চাহিদা। বস্ত্র তৈরির মূল যে উপাদান সেটা হচ্ছে সুতা, আর এ সুতা আসে কৃষি থেকে। যেমন- পাট, তুলা, রেশম, তিসি বা ফ্লাক গাছের আঁশ।

মৌলিক চাহিদা-৩: বাসস্থান।

মানুষের তৃতীয় মৌলিক চাহিদা হিসেবে যাকে গণ্য করা হয় তা হল বাসস্থান। বাসস্থান তৈরির প্রধান উপকরণ বিশেষ করে গ্রাম। অঞ্চলে বাঁশ, কাঠ, খড়, বেত, গােলপাতা, ছন ইত্যাদি ব্যবহার করা হয় কৃষি পণ্য থেকে। এছাড়া শহরে ইটের গাঁথুনির বাড়িগুলােতে নকশা, ছাদ তৈরি ও দরজা-জানালা তৈরিতে কাঠজাত কৃষিদ্রব্য ব্যবহার করা হয়।

মৌলিক চাহিদা-৪: শিক্ষা

কথায় আছে, শিক্ষা মানুষকে মানুষ বানায় এবং একজন প্রকৃত শিক্ষিত মানুষ দেশের সম্পদ। আর এই শিক্ষার প্রধান উপকরণ | যেমন- কাগজ, পেন্সিল তৈরি হয় কৃষিদ্রব্য বাঁশ, কাঠ, আখের ছােবড়া, ধানের খড়, রাবার, আঠা ইত্যাদি কৃষি পণ্য থেকে আসে।

মৌলিক চাহিদা-৫: চিকিৎসা।

চিকিৎসা হল মানুষের গুরুত্বপূর্ণ মৌলিক চাহিদা। রোগ ব্যাধির চিকিৎসার জন্য ওষুধ তৈরি হয়। এ ওষুধ মানুষের চিকিৎসা ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়। মানুষের সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য এবং রোগ প্রতিরোধ করার জন্য বর্তমানে অ্যালোপ্যাথি (হারবাল), হোমিওপ্যাথি ইউনানী, আয়ুর্বেদিক বিভিন্ন | ওষুধ তৈরি হয় কৃষিজাত দ্রব্য দিয়ে। এছাড়া জীবন রক্ষাকারী পেনিসিলিন তৈরি হয় এক ধরনের ছত্রাক উদ্ভিদ থেকে। আমলকি, হরিতকি, বহেরা, থানকুনি পাতা, বাসক ইত্যাদির উদ্ভিদের ঔষধি গুণ। রয়েছে; যা আমাদের বিভিন্ন রোগ-ব্যাধি হতে সুস্থ হতে সহায়তা করে।

উপসংহার কৃষি গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়ন, খাদ্য নিরাপত্তা তথা খাদ্যশস্য উৎপাদনে । স্বনির্ভরতা অর্জন, শিল্পায়ন, দারিদ্র্য দূরীকরণ, গ্রামীণ নারী-পুরুষের এবং বিশেষ করে শিশুদের পুষ্টি সাধনের মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক ও টেকসই অর্থনৈতিক । উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে। আমাদের মৌলিক চাহিদার সবগুলােই আমরা কৃষি থেকে পেয়ে থাকি। আশার কথা হলাে- বর্তমানে কৃষির পরিধি দিন দিন । বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষ আগের থেকে বেশি কৃষির উপর গুরুত্ব দিচ্ছে। তরুণ যুব । সমাজ নিজেদেরকে কৃষি পেশায় নিয়ােজিত করে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হচ্ছে। সরকারি-বেসরকারিভাবে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের সব মানুষের | মৌলিক চাহিদা পূরণে কৃষির অবদান দিন দিন বেড়েই চলছে।।

 

 

 

 

 

 

 

এখানে দেখুনঃ 

৬ষ্ঠ শ্রেণীর গণিত অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১ – ৩য় সপ্তাহের

৭ম শ্রেণীর গণিত অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১ – ৩য় সপ্তাহের
নবম (৯ম) শ্রেণীর পৌরনীতি ও নাগরিকতা অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১ – ২য় সপ্তাহ

 

সর্বশেষ কথা

নতুন সপ্তাহের জন্য ষষ্ঠ শ্রেণির তিনটি বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান করার জন্য দেয়া হয়েছে। আর আমরা প্রতিটি বিষয়ে সঠিক উত্তর আমাদের পোস্টে দিয়েছি। তাই অবশ্যই সবার সাথে ষষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান শেয়ার করুন। আরো দেখে নিন ষষ্ঠ শ্রেণির গণিত অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান এবং ষষ্ঠ শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট সমাধান।

Back to top button
Close