অ্যাসাইনমেন্ট

ষষ্ঠ শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ সমাধান Class 6 Assignment Solution 2022

ষষ্ঠ শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ সমাধান Class 6 Assignment Solution 2022

৬ষ্ঠ সাপ্তাহর অ্যাসাইনমেন্টের সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ৬ষ্ঠ সাপ্তাহর ৬ষ্ঠ শ্রেণির কৃষি শিক্ষা অ্যাসইনমেন্টের সমাধান করব। যদি আপনারা ৬ষ্ঠ  শ্রেণির কৃষি শিক্ষা অ্যাসইনমেন্টের এই উত্তর গুলাে অরুসরণ করেন তাহলে ১০০% মার্কস পাবেন। আরাে সকল সাপ্তাহর অ্যাসাইনমেন্টে পেতে আমাদের থাকবেন সাথে আশা করি।

 

প্রশ্ন:

 

ক) উদ্দীপকের প্রদত্ত ফসলগুলাে চাষের উপযোগী মাটির প্রকারভেদ অনুযায়ী তালিকা তৈরি করা.?

উত্তর: উদ্দীপকের প্রদত্ত ফসলগুলাে চাষের উপযােগী মাটির প্রকারভেদ অনুযায়ী তালিকা তৈরি করা হলাে।

গম চাষঃ গম চাষের জন্য উচু ও মাঝারি জমি বেশি উপযােগী।তবে মাঝারি নিচু জমিতেও গম চাষ করা যায়। দো-আঁশ ও বেলে দো-আঁশ মাটি গম চাষের জন্য সর্বোত্তম।

আলু চাষঃ আলু চাষের জন্য হালকা প্রকৃতি মাটি উপযােগী। বেলে দো-আঁশ মাটি আলু চাষের জন্য বেশি উপযােগী।

পাট চাষঃ পাট চাষের জন্য উচু ও মধ্যম উচু জমি বেশি উপযােগী। দো-আঁশ মাটি পাট চাষের জন্য বেশি উপযােগী।

বাদাম চাষঃ বাদাম চাষের জন্য বেলে দো-আঁশ, দোআঁশ এবং বেলে মাটি উপযােগী।

খ) শিক্ষকের শেষ মন্তব্যটি কোন মাটিকে নির্দেশ করে? ব্যাখ্যাপূর্বক ধান চাষের জন্য এই মাটি উপযােগী কী না-যুক্তি দাও।

উত্তর: শিক্ষকের শেষ মন্তব্যটি পলি দো-আঁশ মাটিকে নির্দেশ করে। কারন আদর্শ পলি দো-আঁশ মাটিতে অর্ধেক বালিকণা এবং বাকি অর্ধেক পলিকণা ও কাদাযুক্ত থাকে।
ধান চাষের জন্য এই মাটি উপযােগী নয়। কারন কংকরযুক্ত পলি দো-আঁশ। ও বেলে মাটি ছাড়া সব মাটিই ধান চাষের উপযােগী। এটেল ও এটেল দো-আঁশ মাটি ধান চাষের জন্য খুব ভালাে। নদ-নদীর অববাহিকা ও হাওর-বাওর এলাকা যেখানে পলি জমে সেখানেও ধান ভালাে হয়। প্রকাভেদেও উচু মাঝারি,নিচু সব ধরণের জমিতেই ধানের চাষ করা যায়।

যেমন নিচু জমিতে বােরাে ও অলি আমন চাষ করা যায়। মাটির অম্লক থেকে নিরপেক্ষ অবস্থা ধান চাষের অনুকুল |
মাটিতে জৈব পদার্থ কম হলে কম্পােস্ট ব্যবহার করে এর মাত্রা বাড়ানাে যায়।মাটির নাট্রোজেন,ফসফরাসা,পটাশ, জিঙ্ক,সালফার ইত্যাদির মাত্রা নির্ধারণ করে প্রয়ােজনীয় সার ব্যবহার করে মাটির উর্বরতা বৃদ্বি করা যায়। পরিশেষে বলা যায় যে, উপরােক্ত গুণাগুণ যেহেতু পলি দো-আঁশ মাটিতে বিদ্যমান থাকে না। তাই এই মাটি ধান চাষের উপযুক্ত নয়।

 

♦♦২ নং প্রশ্নের উত্তর♦♦


আমার এলাকায় জন্মে এমন ফুল,ফল, শাক-সবজি ও মসলা জাতীয় ফসলের তালিকা তৈরি করা হলােঃ

ফুল জাতীয় ফসল ⇒ ……………….→গােলাপ,গাধা,রজনীগন্ধা,হাসনাহেনা ও বেলি

ফল জাতীয় ফসল⇒ ………………..→কলা,লেবু,আম,জাম,আনারস ও পেয়ারা

শাক-সবজি জাতীয়⇒……………….→আলু, লাউ, গাজর,শষা,পালং শাক, মুলা,

ফসল মসলা জাতীয় ফসল⇒………→পেয়াজ,রসুন,আদা,ধনিয়া,তেজপাতা,জিরা।

উপরােক্ত ফসলগুলাের অর্থনৈতিক গুরুত্ব নিচে বর্ণনা করা হলােঃ

ফুলের অর্থনৈতিক গুরুত্ব:

১)ফুল সহজে চাষ পক্রিয়া ও অভিযােজন যােগ্যতার কারনে এঠি বহুল জনপ্রিয়তা রয়েছে।

২) ঝুলন্ত ঝুড়ি, মালা তৈরি, বিয়ে বাড়ির স্টেজ সাজানাের কাজে বা উপহার হিসিবে ব্যবহৃত হয়। যার মাধ্যমে অর্থনৈতিকভাবে বিক্রেতা লাভবান হয়।

ফলের অর্থনৈতিক গুরুত্ব:

১) যেহেতু দেশি ফল হতে আমরা নানা ধরণের পুষ্টিমূল্য পেয়ে থাকি তাই এর চাষ আমাদের জীবনের নানা ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবধান রাখে।

২)ফলের উৎপাদন, বিপণন ব্যবস্থাপনা এবং সক্রিযাতকরণ অত্যান্ত শ্রমঘন কাজ বিধায় এগুলাে। কর্মসংস্থানের সুযােগ সৃষ্টি করে।

শাক-সবজির অর্থনৈতিক গুরুত্বঃ

১) বিদ্যমান বাজারে শাক-সবজি বিক্রয় করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়া যায় খুব সহযেই
২) শাক-সবজি ও ফলমূল উৎপাদন করে কৃষিখাতের মধ্য দিয়ে অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে অবধান রাখা যায়

মসলার অর্থনৈতিক গুরুত্বঃ

১)বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানের রান্না কাজের সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয় মসলা

২)মসলার দাম ন্যায্য থাকায় সবার ক্রয়ক্ষমতার ভিতরে থাকে।

 

আপনাদের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর  কৃষি শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্টের ৬ষ্ঠ সাপ্তাহর উত্তর।এটা দেখে দেখে সুন্দর করে খাতায় লেখেবেন। তাহলে আপনি ভাল একটা মার্কস্ পাবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

Back to top button
Close