অ্যাসাইনমেন্ট

Class 7 Islam Assignment solution || 5th Week || ৭ম শ্রেণীর এস্যাইনমেন্ট || ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

৫ম সাপ্তাহর অ্যাসাইনমেন্টের সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ৫ম সাপ্তাহর ৭ম শ্রেণির ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা অ্যাসইনমেন্টের সমাধান করব। যদি আপনারা ৭ম  শ্রেণির ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা অ্যাসইনমেন্টের এই উত্তর গুলাে অরুসরণ করেন তাহলে ১০০% মার্কস পাবেন। আরাে সকল সাপ্তাহর অ্যাসাইনমেন্টে পেতে আমাদের থাকবেন সাথে আশা করি।

প্রশ্ন:

গ) জনাব ‘ক’ এর মধ্যে আখলাকে হামিদাহর কোন গুণটি বিদ্যামান? ব্যাখা কর। 

উত্তর: উদ্দীপকে নকীব সাহেবের মধ্যে আখলাকে হামিদাহ এর । সমাজসেবা গুণটি ফুটে উঠেছে। সমাজের বঞ্চিত জনগােষ্ঠীর কল্যাণে স্বেচ্ছায় গৃহীত কাজকে সমাজসেবা বলে।

উদ্দীপকে বর্ণিত নকীব সাহেব প্রতি শুক্রবার তার বন্ধুদের নিয়ে স্বীয়। | উদ্যোগে রাস্তা মেরামত ও সংস্কার করেন।এই কাজ তিনি নিজ উদ্যোগেই করেন।

সমাজে নানা শ্রেণি ও পেশার লােক বাস করে। তারা সকলে সমান নয়। তাদের সুযােগ-সুবিধাও নয়। কেউ বিপুল সম্পদের অধিকারী আবার কেউ কপর্দকহীন। সম্পদশালী ব্যক্তিগণ অভাবী জনগােষ্ঠীর উন্নয়নেও তাঁদের সম্পদ ব্যয় করবে। সমাজের অবহেলিত মানুষের কল্যাণে প্রতিষ্ঠান গড়বে।

এটাই ইসলামের নির্দেশ। মহান আল্লাহ বলেন
 وفي أموالهم حق تلسائل والمحرومه

অর্থ : “এবং তাদের (ধনীদের) ধন-সম্পদে রয়েছে অভাবগ্রস্ত ও বঞ্চিতের হক।” (সূরা আয-যারিয়াত, আয়াত ১৯)
অর্থশালী ব্যক্তি সমাজের অবহেলিত মানুষের কল্যাণে এমন প্রতিষ্ঠান গড়বে, যে প্রতিষ্ঠানে অভাবী লােকেরা কাজ করে তাদের আর্থিক সমস্যার সুরাহা করবে। বাঁচার অবলম্বন খুঁজে পাবে । গ্রামের উন্নয়নের বিরাট বাধা দূর করার জন্য গ্রামে-গঞ্জে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তােলাসহ কল্যাণমূলক | প্রতিষ্ঠান গড়ে তােলা সমাজসেবামূলক কাজ।

সামাজিক নিরাপত্তা রক্ষা করা, পরস্পরের কলহ ও দ্বন্দ্ব মেটানাে সমাজসেবার অন্তর্ভুক্ত। আল্লাহ তায়ালা বলেন“মুমিনদের দুই দল দ্বন্দ্বে লিপ্ত হলে তাদের মধ্যে মীমাংসা করে দাও।”(সূরা আল-হুজুরাত, আয়াত ৯) সর্বস্তরের জনগণের উপকারে আসে এমন সব কাজের অভ্যাস ছােটবেলা থেকেই করা দরকার।যেমনভাঙা রাস্তা মেরামত করা, নতুন রাস্তা নির্মাণে সাহায্য করা, পুল-সাঁকো নির্মাণ করা, রুগ্ণ ব্যক্তির সেবা করা, আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসাকেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া, রাস্তার পাশে ছায়াদার বৃক্ষ রােপণ করা, বৃক্ষ সংরক্ষণ করা ইত্যাদি।
জনসেবা দ্বারা আল্লাহ তায়ালার সাহায্য লাভ করা যায়। রাসুলুল্লাহ (স.) বলেন, “আল্লাহ বান্দাকে ততক্ষণ সাহায্য করেন, যতক্ষণ বান্দা তার ভাইকে সাহায্য করতে থাকে।” (মুসলিম)

অতএব এ কথা প্রতীয়মান হয় যে,উদ্দীপকে বর্নিত নকীব সাহেবের | কাজটি আখলাকে হামিদাহ এর সমাজসেবা গুণ এর অন্তর্ভুক্ত।

 

ঘ. জনাব ‘খ’ এর কার্যক্রমটি তােমার পাঠ্যবইয়ের আলােকে বিশ্লেষণ কর।

উত্তর: উদ্দীপকে নকীব সাহেবের আচরণে আখলাকে যামিমার পরশ্রীকাতরতার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।

পরশ্রীকাতরতা অর্থ অন্যের উন্নতি ও সৌভাগ্য দেখে ঈর্ষা প্রকাশ করা। অর্থাৎ কারাে ধন-দৌলত, সম্মান, ভালাে ফল বা উচ্চ মর্যদ দেখে ঈর্ষান্বিত হওয়া এবং তার ধ্বংস কামনা করাবে পরশ্রীকাতরতা বলা হয়। পরশ্রীকাতরতা একটি মারাত্মক মানসিব ব্যাধি। শত্রুতা, অহংকার, নিজের অসদুদ্দেশ্য নষ্ট হওয়ার আশংকা নেতৃত্বের, লােভ ইত্যাদি কারণে এক ব্যক্তি অপর ব্যক্তির প্রতি হিংস বিদ্বেষ করে থাকে। ইসলাম এ কাজগুলাে হারাম ঘােষণা করে,

উদ্দীপকে বর্ণিত নকিব সাহেবের সমাজসেবামূলক কাজ দেখে তার বন্ধু নাবিল সাহেব সহযােগিতা না করে বলে বেড়াচ্ছেন নকিব সাহেব এ কাজগুলাে নেতা হওয়ার জন্য করছেন।

                                                         পরশ্রীকাতরতা মানুষের পুণ্য কাজগুলােকে |

ধ্বংস করে দেয়। এ সম্পর্কে মহানবি (স.) বলেছেন,

ن التشكيل المحتا گاتا النار الحطب |

অর্থ : “আগুন যেমন শুকনা কাঠকে জ্বালিয়ে ছাই করে দেয় পরশ্রীকাতরতা তেমনই পুণ্যকে ধ্বংস করে। দেয়।” (মুসনাদি শিহাব)

পরশ্রীকাতরতা মানুষের শান্তি বিনষ্ট করে। মনে অশান্তির আগুন জ্বালিয়ে রাখে। পরশ্রীকাতর ব্যক্তি আল্লাহ এবং মানুষের কাছে ঘৃণিত। কেউ তাকে ভালােবাসে না। কেউ তাকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করে না। সমাজের লােকেরা তাকে এড়িয়ে চলে। পরশ্রীকাতরতা সমাজে ঝগড়া-ফাসাদ, মারামারি ও অশান্তি সৃষ্টি করে। মানুষের মনে অহংকার সৃষ্টি হয় । অহংকার মানুষের পতন ঘটায়। অতএব আমরা বুঝতে পারি যে, নাবিল সাহেবের কাজটি|

                                                                             পরশ্রীকাতরতার পরিচায়ক।

 

আপনাদের ৭ম শ্রেণীর  ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্টের ৫ম সাপ্তাহর উত্তর।এটা দেখে দেখে সুন্দর করে খাতায় লেখেবেন। তাহলে আপনি ভাল একটা মার্কস্ পাবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

Back to top button
Close