Skip to content

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়| যেভাবে চালু করবেন

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

প্রিয় ভিউয়ার্স, আসসালামু আলাইকুম। আশা করি ভাল আছেন। আজকে আমরা আলোচনা করবো, বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করণীয় কি ? এবং কি কি কারণে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয় এবং কি করলে তা চালু করা সম্ভব এই বিষয়ে সকল তথ্য রয়েছে এই পোস্টে। অর্থাৎ যাদের বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয়ে গেছে তাদের জন্য এই পোস্টটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সকলেই জানি বিকাশ হচ্ছে একটি মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম। যেকোনো ব্যাংকের বিষয়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এ বিষয়ে কোনো প্রকার অবহেলা বা অলসতা করা ঠিক নয়। আজকে আমরা আমাদের ভিউয়ার্স দের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য দিতে চলেছি। বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে যে সকল করণীয় রয়েছে এ সকল করণীয় জানতে পারবেন এখান থেকে। আশা করি আজকের পোস্টের বিষয় সম্পর্কে আপনারা জানতে পেরেছেন। সুতরাং আপনার যদি এই ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই এখান থেকে এর সমাধান নিয়ে যাবেন।

একাউন্ট সংক্রান্ত সকল সমস্যার সমাধান রয়েছে এই পোস্টে। সুতরাং বিকাশ একাউন্ট জনিত যত সমস্যা রয়েছে সকল সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন এই পোষ্টের মাধ্যমে। এর জন্য আপনাকে পুরো পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার কিছু কারণ

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার কিছু কারণ রয়েছে, এই কারণগুলো সম্পর্কে আমাদের জানতে হবে। এর ফলে আমরা সচেতন থাকতে পারবো জানতে পারবো কি কি কাজ করলে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয়। এর ফলে আমাদের ভবিষ্যৎ সময়ে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা খুবই কম। জিতু বিকাশ হচ্ছে একটি মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম অবশ্যই তাদের কার্যক্রম গুলো খুবই কঠিন ও জটিল। নিয়মের বাইরে গেলে অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দেয়া হয়। তাই ,কিছু কারণ আমরা আপনাদের সামনে উল্লেখ করবো যেগুলোর মাধ্যমে আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ হবে। নিচে এ ধরনের কারণগুলো দেওয়া রয়েছে।

১. ৩০ মিনিট এর ভিতরে ৩ বার ভুল পিন মারার জন্য।

২. বিকাশ একাউন্ট এর তথ্য সঠিক না হলে।

৩. অনেক দিন যাবত বিকাশ একাউন্টে লেনদেন না করলে।

৪. সিম রিপ্লেস করলে।

বিকাশ একাউন্ট ডিসেবল কি?

এর অর্থ হচ্ছে আপনি যে চ্যানেলটি ব্যাবহার করে আপনার বিকাশ লেনদেনটি সম্পূর্ণ করতে চাচ্ছেন তা এখন আপনার জন্য বন্ধ আছে।

In other words, Bkash pin locked হলে আপনি এমনটা দেখতে পাবেন।

Bkash pin locked হলে কি কি সমস্যা হবে? 

  • আপনি টাকা নিতে পারবেন কিন্তু পাঠাতে পারবেন না।
  • bkash account check problem হবে।
  • bkash app login problem করতে সমস্যা হবে।

বিকাশ একাউন্ট কেন ডিজেবল হয়?

 

আপনার নিজের বিকাশ একাউন্ট পিন নম্বরটি আপনি পর পর ২ বার পর্যন্ত ভুল করতে পারেন।

For instance, আপনি তৃতীয় বার ভুল করলে আপনার বিকাশ একাউন্ট ডিজেবল হয়ে যাবে।

আনেকেই বলেন যে আমি একবার ভুল পিন কোড ডায়াল করিনি। তাহলে কিভাবে আমার বিকাশ একাউন্ট ডিজেবল হল।

আমি বলব আপনি আপার মোবাইলটি আপনার কাছে রাখার চেষ্টা করুন। কেননা বিকাশ থেকে বিকাশে টাকা সেন্ড করতে এখন খুব বেশি সময় লাগেনা।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে আপনার যা করণীয় রয়েছে তা জানতে পারবেন এই পোস্টে। উপরে আমরা অ্যাকাউন্ট বন্ধ হওয়ার কিছু কারণ উল্লেখ করেছি এই সকল কারণ এর উপর ভিত্তি করে অ্যাকাউন্ট গুলো বন্ধ হয়ে থাকে। সুতরাং আপনারা অবশ্যই এই কারণগুলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করবেন। এরপরেও কোন কারণে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয়ে গেলে আপনি যা করবেন তা আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদের জানিয়ে দেবো। হঠাৎ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পোষ্ট হতে চলেছে এটি। মনোযোগ সহকারে আজকের পোস্টটি পড়ে আপনার সমস্যার সমাধান নিন। এছাড়াও আপনি যদি বিকাশ হেল্পলাইন এ যোগাযোগ করতে চান। তাহলে ক্লিক করুন। বিকাশ লাইভ চ্যাট।

এখানে যোগাযোগ করে আপনার সমস্যার কথা উল্লেখ করে সমাধান দিতে পারেন। এছাড়াও সাধারণভাবে আমরা কিছু উপায় আপনাদের দিয়ে রাখছে এই সকল উপায়ে এর উপর ভিত্তি করে আপনি আপনার সমস্যার সমাধান পেতে পারেন। তবে অনেকেই রয়েছে যারা কাস্টমার সাপোর্ট এ যোগাযোগ করে তাদের সমস্যার সমাধান পেতে চায় তারা উপরে দেয়া লিংটিতে ক্লিক করুন।

এখন কথা হচ্ছে আপনার বিকাশ একাউন্ট ডিজেবল হলে আপনি কি পদক্ষেপ নিবেন।

Bkash account ডিজেবল হলে বেশি চিন্তিত হওয়ার কারন নেই।

কেননা আপনি বিকাশ হেল্পলাইনে কল করে সহজেই আপনার নম্বরটির পিন পরিবর্তন করতে পারেন।

Firstly, চিন্তিত না হয়ে Bkash helpline number 16247 নম্বরটি কল করুন। আপনার Bkash account সম্পর্কিত প্রয়োজনীয় তথ্য আপনার কাছে জানতে চাওয়া হবে।

সঠিক ভাবে তথ্য দিতে পারলে আপনার পিন রিসেট করে দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: