Skip to content

বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে ইসলামিক স্ট্যাটাস ও ক্যাপশন

বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে ইসলামিক স্ট্যাটাস

বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে ইসলামিক স্ট্যাটাস ও ক্যাপশন: বিশ্বকাপ ফুটবলকে নিয়ে অনেকেই অনেক দলের পতাকা জার্সি তৈরি নিয়ে ব্যস্ত। তবে মুসলিম হিসেবে বিশ্বকাপ ফুটবল সমর্থক হওয়া উচিত কিনা। এ বিষয় সম্পর্কে অনেকেই জানার আগ্রহ প্রকাশ করেন যারা ইসলাম সম্পর্কে এতটা সচেতন আমরা তাদের সম্মান প্রদর্শন করছি সকলের প্রতি আমাদের সালাম আসসালামু আলাইকুম। ইসলাম সম্পর্কিত আরো একটি আলোচনায় আপনাদের স্বাগতম জানাচ্ছি। আপনাদের সুস্বাস্থ্য কামনা করে আজকের আলোচনায় আমরা তুলে ধরব বর্তমান সময়ে আমাদের মাঝে একটি টুর্নামেন্ট চলছে যেটি হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। বিশ্বকাপ এই ফুটবল কে কেন্দ্র করে এক এক ব্যক্তি একেক দলকে সমর্থন করছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল।

তবে কিছু সংখ্যক সচেতন ব্যক্তি রয়েছে যারা আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে জানার আগ্রহ নিয়ে অনলাইনে আসছে। আমরা যাদেরকে অনুসরণ করে তাদের পতাকা তৈরি করছি তাদের জার্সি পড়ছি তাদেরকে বিভিন্নভাবে অনুসরণ করছি তারা কোন ধর্মের তারা ইসলামকে কিভাবে দেখেন এ বিষয় সম্পর্কে জানতে হবে। তাইতো কিছু মহান ব্যক্তিগণ বিশ্বকাপ ফুটবলকে কেন্দ্র করে ইসলামিক স্ট্যাটাস ও ক্যাপশন অনুসন্ধান করে আমাদের আলোচনায় রয়েছেন। আমরা সত্যিই এমন ব্যক্তিদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করছি আপনাদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে আমাদের আলোচনায় আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করব আমাদের সাধ্যমত।

বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে ইসলামিক স্টাটাস

বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে ইসলামিক স্ট্যাটাস অনুসন্ধান করেন অনেকেই, তাই আমরা আপনাদের সহযোগিতার জন্য চেষ্টা করেছি বিশ্বকাপ ফুটবলকে কেন্দ্র করে সুন্দর কিছু ইসলামিক স্ট্যাটাস আপনাদের মাঝে তুলে ধরতে। আপনারা চাইলে আমাদের সাথে থেকে ইসলামিক এই স্ট্যাটাস গুলো সংগ্রহ করে সোশ্যাল মিডিয়া সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন। বিশ্বকাপ ফুটবল কে কেন্দ্র করে সুন্দর এই ইসলামিক স্ট্যাটাস গুলো প্রচার করতে পারেন একজন মুসলিম হিসেবে।

১. ফুটবল হলো একটা ভুল করার খেলা। যে যত কম ভুল করবে, সেই দিনশেষে খেলাটা জিতবে।
— জোহান ক্রুইফ৷

২. ফুটবলকে নষ্ট করার মতো ঘৃণ্য কাজ যে করে , ছোটবেলায় মৃত্যুবরণ করাই ভালো ছিলো।
— জন হেইসম্যান।

৩. ফুটবলে সবকিছু করা সম্ভব। শুধু আপনাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে এবং আপনার নিজের দক্ষতার ওপর বিশ্বাস রাখতে হবে।
— কিলিয়ান এমবাপ্পে।

৪. ফুটবল থাকে ফুটবলের জায়গায়, আর দক্ষতা থাকে দক্ষতার জায়গায়। কিন্তু দুটো দলের মধ্যে যেটা পার্থক্য গড়ে দেয় তা হলো আপনার দলের ইতিবাচক মানসিকতা।
— রবার্ট গ্রিফিন।

৫. আমি ঠিক ততদিন পর্যন্ত ফুটবল খেলতে চাই, যতদিন না আমার পুত্র আমকে বলে, ” তুমি আর দৌড়াতে পারবে না, তুমি মৃত। ”
— সন হিউয়্যাং মিন৷

৬. ফুটবল মানে হলো আত্নত্যাগ, উৎসর্গ, কঠোর পরিশ্রম এবং মাঠের বাইরের বন্ধুত্বের একটা সংমিশ্রণ।
— এডিনসন কাভানি।

৭. ফুটবল একটা শিল্প, যেমন নাচ একটা শিল্প, ঠিক তেমনি। কিন্তু এটা তখনি শুধু শিল্প হয়ে ওঠে, যখন কেউ এটিকে ভালোমতো খেলে।
— আর্সেন ওয়েঙ্গার।

৮. ফুটবলে আমার খব বেশি বন্ধু নেই। খুব বেশি বিশ্বাস করতে পারি, এমন মানুষও আমার আশেপাশে খুব কম। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আসি খুব একা।
— ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

৯. তুমি অবশ্যই তোমার পরিকল্পনা সাজাতে পারো। তবে ফুটবল মাঠে ঠিক কি হবে, তা কোনোভাবেই আগে থেকে আন্দাজ করা সম্ভব না।
— ম্যানুয়েল ন্যুয়ার।

১০. আনুগত্য ফুটবলের একটি বড় অংশ এবং এটি দেখায় যে আপনি একজন সত্যিকারের মানুষ কিনা।
— জ্যাক উইলশেয়ার।

১১. ফুটবল এমন একটি খেলা যেখানে আপনি ভুল না করে খেলা শেষ করতে পারবেন না৷ আপনাকে অবশ্যই কোথাও না কোথাও ভুল করতেই হবে।
— হিউয়েন ক্লপ।

১২. ফুটবলে সবচেয়ে নিকৃষ্ট জিনিস হচ্ছে অযুহাত। তোমার কাছে অযুহাত আছে মানেই তুমি থমকে গিয়েছো, আর সামনে এগোতে পারছো না।
— পেপ গার্দিওয়ালা।

ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে ইসলামিক ক্যাপশন

ফুটবল বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে ইসলামিক ক্যাপশন ব্যবহারের আগ্রহ নিয়ে আমাদের আলোচনা এসে থাকলে এখান থেকে এমন ক্যাপশন গুলো সংগ্রহ করতে পারবেন। ইসলাম সম্পর্কিত এই ধরনের তথ্যগুলো খুব কম সংখ্যক ব্যক্তি অনুসন্ধান করলেও আমরা গুরুত্বের সাথে ইসলাম শরীয়ত সম্পর্কিত এই তথ্যগুলো আপনাদের মাঝে তুলে ধরার চেষ্টা করে থাকি। এক্ষেত্রে নিচে বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে ইসলামী ক্যাপশন গুলো তুলে ধরেছি আমরা।

১৩. ফুটবলে তুমি জয় লাভ করো দল হিসেবে। আবার পরাজয় বরণও করো দল হিসেবেই। তাই জয়ের আনন্দ কিংবা পরাজয়ের গ্লানি, সকলের মধ্যে সমান ভাবে ভাগ করে দিতে হবে।
— গ্যায়ানলুইকি বুফন।

১৪. পুরুষদের বন্ধুত্বকে তারা ফুটবলের মতো এদিক, ওদিকে ছোঁড়াছুড়ি করে, তবে তাতে ফাটল ধরে না। আর মহিলারা বন্ধুত্বকে মনে করে একটি কাঁচের মতো, যা খুব সহজেই টুকরো টুকরো হয়ে যায়।
— অ্যান মোরো লিন্ডবার্গ।

১৫. আমি কখনোই ফুটবলকে অগ্রাধিকার দেই নি। আমি সবসময় আমার নিজের প্রতি বিশ্বাস এবং ঈশ্বরের কাছে নিবেদনকে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করেছি এবং এগুলোই আমাকে ফুটবলে ভালো করিয়েছে।
— ববি বাউডেন।

১৬. আমি কখনোই ব্যালন ডি অর পাওয়ার জন্য ফুটবল খেলি না। আমি ফুটবল খেলি কারণ আমি এটিকে ভালোবাসি এবং আমি ফুটবল খেলতে চাই। আমার কাছে এটি একটি সুখের এবং আত্মতৃপ্তির মাধ্যম।
— নেইমার।

১৭. আমি শুধু ফুটবলের মাঠে নয়, আমার জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ভালো হওয়ার চেষ্টা করি। আমি প্রতিযোগিতায় বিশ্বাসী , এবং আমি সবসময় আরো ভাল পেতে চাই।
— রাহিম স্টার্লিং।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: