টিপস

মাদকাসক্তি থেকে দূরে থাকার উপায়। নেশা থেকে বেঁচে থাকার উপায়

নেশা থেকে দূরে থাকার উপায়। অনেকেই বিভিন্ন কারণে নেশার সাথে জড়িয়ে পড়েন কিন্তু পরবর্তী সময়ে এই নেশা থেকে দূরে থাকার উপায় খুঁজে থাকেন। এ কারণেই আমরা এই বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এই পোস্টটি নিয়ে উপস্থিত হয়েছি সুতরাং আপনারা যারা এ বিষয়ে সম্পর্কে জানতে আগ্রহী কিংবা নেশা থেকে দূরে থাকতে চেষ্টা করছেন। তারা অবশ্যই এখান থেকে আপনার সহযোগিতা অর্থ নিয়ে উপকৃত হতে পারেন।

বর্তমান যুবসমাজ ধ্বংসের মুখে। তাদের ধ্বংসের কারণ হিসেবে দায়ী মাদকাসক্তি। বর্তমান সময়ের বিপুলসংখ্যক মানুষ নিশার সাথে জড়িত। বর্তমান বিভিন্ন নেশাজাত দ্রব্য পাওয়া যায় যেগুলো ইতিপূর্বে ছিলনা। মারাত্মক এই নেশার সাথে জড়িত হয়ে দিনদিন যুবসমাজ ধ্বংসের সীমানায় দাঁড়িয়ে। তবে অনেকেই এই নেশার জগতে গিয়ে ফিরে আসার পথ খুঁজছেন তবে কীভাবে এই নেশা থেকে দূরে থাকা যায় এই বিষয়গুলি তাদের কাছে অজানা। এক্ষেত্রে আমরা নেশা থেকে দূরে থাকার কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস অর্থাৎ তথ্য দিয়ে আপনাদের সহযোগিতা করার লক্ষ্য নিয়ে উপস্থিত হয়েছি এখানে। আপনারা যারা নেশা থেকে দূরে থাকতে চান তারা অবশ্যই আমাদের পোস্টের সাথে থাকবেন।

মাদকাসক্ত থেকে দূরে থাকার উপায়

আপনারা যারা মাদকাসক্তি থেকে দূরে থাকার উপায় গুলি অনুসন্ধান করেছেন তাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও সহযোগী একটি পোস্ট হচ্ছে এটি। বর্তমান সময়ে অনেকেই এই বিষয়টি নিয়ে অনলাইন অনুসন্ধান করেন তবে তেমন কোন ওয়েবসাইট নেই যারা এই বিষয়ে সঠিক ও কার্যকর উপায় জানিয়ে আপনাদের উপকৃত করবে। এক্ষেত্রে আমরা আপনাদের সহযোগিতা অর্থ গুলো সংগ্রহ করেছি অনেক সময় ও শ্রম এর মধ্য দিয়ে। মাদক নিরাময় কেন্দ্র থেকে তথ্য নিয়ে এ পোস্টটি লিখতে আমরা সক্ষম হয়েছি। বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক একটি সেবা হচ্ছে মাদক নিরাময় কেন্দ্র যেখানে মাদক সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা পর্যালোচনা করা হয়। এবং যারা মাদকের সাথে গভীরভাবে সম্পর্কিত তাদেরকে সুচিকিৎসা দেওয়া হয়। নিচে আমরা মাদক থেকে দূরে থাকার কিছু উপায় তুলে ধরছি।

১) মাদকদ্রব্য ও এর অপব্যবহার সম্পর্কে এলাকায় যুবসমাজকে এবং জনগণকে সচেতন করার জন্য পাড়া-মহল্লায় মাদক বিরোধী সংগঠন ও ক্লাব গড়ে তোলা। এসব সংগঠনের মাধ্যমে মাদক বিরোধী প্রচার ও রেলি পরিচালনা।

২) সামাজিক ব্যক্তিত্ব সাংবাদিক নৈতিক শিক্ষা জনপ্রিয় অভিনেতা শিল্পী এসব ব্যক্তিত্বের মাদক বিরোধী প্রচারণায় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।

৩) ইতিবাচক পরিবর্তনের একটি তালিকা তৈরি করুন:

মাদক ত্যাগ করলে আপনার জীবনে কী কী ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে তার একটি তালিকা তৈরি করুন। যেমন-

-আপনি স্বাধীন অনুভব করবেন

-আত্মীয় বা প্রিয়জনের সাথে সময় কাটাতে পারবেন

-অর্থ সঞ্চয় করতে পারবেন

-আত্মবিশ্বাস ফিরে পাবেন, ইত্যাদি।

৪) কেন আপনি মাদক ত্যাগ করতে চান তার একটি তালিকা তৈরি করুন:

এটা করতে আপনি আপনার বন্ধু বা পরিবারের সহযোগিতা নিতে পারেন। এই তালিকা আপনাকে আপনার মনোবল বাড়াতে সহযোগিতা করবে। তালিকাটি হতে পারে এমন-

Back to top button
Close