টিপস

eporcha (ই পর্চা)– www.eporcha.gov.bd লগিন, খতিয়ান ডাউনলোড, আবেদন, মালিকানা যাচাই

প্রিয় পাঠক বন্ধু, ই-পর্চা সম্পর্কিত সাইটে আপনাকে স্বাগতম। ই-পর্চা সম্পর্কিত সকল তথ্য জানার পাশাপাশি খতিয়ান সহ জমির মালিকানা যাচাই করণ প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানাতে আজকের পোস্টটি নিয়ে উপস্থিত হয়েছি আমরা। সুতরাং বিষয়ভিত্তিক আলোচনা আমাদের সাথে থাকুন এবং জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানুন। আজকের আলোচনার মধ্য থেকে আপনি অনলাইন ভূমি সেবা সম্পর্কিত সকল বিষয়ে জানতে পারবেন যেগুলো জানার মাধ্যমে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে জমির বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন। সুতরাং যারা জমি সংক্রান্ত বিষয়ে এখন পর্যন্ত সঠিক জ্ঞান অর্জন করতে পারেননি কিংবা অনলাইন ভিত্তিক এই সেবাগুলো সম্পর্কে জানেন না তারা আমাদের সাথে থাকুন আশা করছি আপনারা উপকৃত হবেন।

আমরা আপনাদের জমি সংক্রান্ত যে অনলাইন সেবা গুলি রয়েছে যেমন ই-পর্চা, খতিয়ান ডাউনলোড পদ্ধতি, এছাড়াও খতিয়ান নাম্বারের মাধ্যমে জমির মালিকানা যাচাই সহ এ ধরনের বেশ কিছু তথ্য আপনাদের জানিয়ে দেব। এই সকল তথ্য ফ্রিতে জেনে নিতে পারছেন এখান থেকে এবং আপনি চাইলেই আপনার রুমে বসে আপনার বাড়ি থেকেই জমির মালিকানা যাচাই করতে পারবেন। এছাড়াও জমির খতিয়ান ডাউনলোড করতে পারবেন মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার এর মাধ্যমে। অর্থাৎ সত্যিকার অর্থেই আজকের পোস্টটি প্রত্যেক ব্যক্তির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ করে যাদের জমি রয়েছে জমি সংক্রান্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে সঠিক জানেন না তারা বিশেষ উপকৃত হবেন এই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ার মাধ্যমে।

বাংলাদেশ সরকার আমাদের কার্যক্রম গুলোকে সহজ ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিভিন্ন বিষয়ে অনলাইন সেবা প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইতিমধ্যে কিছু সেবা কার্যকর হয়েছে কিছু সেবা নিয়ে কাজ চলছে। এদের মধ্যে একটি সেবা হচ্ছে ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওপর। যেখানে অনলাইন ভিত্তিক অর্থাৎ ডিজিটাল সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। দুঃখের বিষয় আমরা অনেকেই এই সেবাগুলো থেকে বঞ্চিত এর কারণ আমাদের এই বিষয়ে জ্ঞান না থাকায় আমরা এই সেবাগুলো গ্রহণ করতে পারিনা। তবে এখন পর্যন্ত গ্রাম পর্যায়ে এমন অনেক মানুষ রয়েছেন যারা এই সেবার বিষয়ে বিশ্বাস করেন না এটা কিভাবে সম্ভব তারা ভেবে উঠতে পারেনা। এক্ষেত্রে আমরা আজকের পোস্টটিতে এই সকল বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সম্পূর্ণ ভাবে আপনাদের জানাবো।

অর্থাৎ পুরো প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানার জন্য অবশ্যই মনোযোগ সহকারে আমাদের সাথে থাকতে হবে। আমরা চেষ্টা করব সকল বিষয়ে সহজভাবে আপনাদের বোঝানোর জন্য। সুতরাং আগ্রহ নিয়ে আমাদের সাথে থাকুন আপনি অবশ্যই এই সেবা গুলো গ্রহন করতে পারবেন এবং এই সেবার বিষয়ে যারা এখন পর্যন্ত অবগত নন তাদের মাঝে এই সেবার বিষয়ে আলোচনা করবেন ধীরে ধীরে অনলাইন সেবার উপর মানুষ বিশ্বাস স্থাপন করবে অনলাইনে সেবা গ্রহণ করে এর মাধ্যমে সময় ও শ্রম কমাবে।

আরো পড়ুন

eporcha gov bd

eporcha gov bd হচ্ছে একটি অফিশিয়াল ওয়েবসাইট। অর্থাৎ সরকার কর্তৃক পরিচালিত একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনাদের জমি সংক্রান্ত পরিপত্র সংক্রান্ত সেবাগুলো প্রদান করা হবে। সুতরাং এই সেবাগুলো নেওয়ার জন্য আমাদের যে পদ্ধতি বা মাধ্যমগুলো জানতে হবে যে পদ্ধতি অবলম্বন করে সেবা গ্রহণ করতে হবে সেই পদ্ধতিগুলো এখানে আলোচনা করা হবে। সুতরাং সেবা গ্রহণের উদ্দেশ্য নিয়ে অনলাইনে অনুসন্ধান করে থাকলে বিষয়ভিত্তিক পুষ্টিসম্পন্ন পড়ার অনুরোধ করছি আশা করছি আপনাদের মাঝে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে পারবো বলে ইনশাল্লাহ। সুতরাং আগ্রহের সাথে সম্পর্কিত সকল তথ্য জেনে নিন।

ই পর্চা কি ?

অনেকেই শুধুমাত্র এটি অনলাইনে অনুসন্ধান করে জেনেছেন তবে সঠিক অর্থে ই-পর্চা কি এটির কাজ কি কিভাবে আমরা পর্চা অনলাইনে পাবো এই বিষয়গুলি সম্পর্কে জানেন না। সুতরাং জানার আগ্রহ নিয়ে যারা অনলাইনে অবস্থান করছেন তাদের সহযোগিতার উদ্দেশ্যে আমরা ই-পর্চা কি? এটির কাজ কি ? কিভাবে ই পর্চার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে সেই সকল বিষয়ে আলোচনা করব।

সুতরাং আপনারা যারা ই-পর্চা সম্পর্কিত সকল তথ্য মনোযোগ সহকারে পড়বেন তারা খুব সহজেই পদ্মা সম্পর্কিত সকল সমস্যার সমাধান নিতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে। ই-পর্চা হচ্ছে এমন একটি অনলাইন সুবিধা যেখান থেকে আপনি খুব সহজেই খতিয়ান ডাউনলোড করে নিতে পারবেন এবং খুব সহজেই জমির মালিকানা যাচাই করতে পারবেন রুমে বসেই। অর্থাৎ সেবাটি নেওয়ার জন্য বিস্তারিত জ্ঞান অর্জন করতে আমাদের সাথে থাকতে হবে।

ই পর্চার সুবিধা কি

ই-পর্চা সুবিধা সম্পর্কে জানতে আগ্রহী ব্যক্তিগণ সঠিক ওয়েবসাইটে এসেছেন এখানে আপনি পর্চা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে জানতে পারবেন। এখানে আমরা বিস্তারিত সকল বিষয়ে আলোচনা করেছি এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়লে অন্য কোথাও আপনাকে এই বিষয়ে পড়ার প্রয়োজন হবে না জানতে পারবেন এখান থেকেই বিস্তারিত সকল তথ্য আমরা অনেক সময় ও শ্রম এর মধ্য দিয়ে সমস্ত তথ্যগুলো সংগ্রহ করেছি আপনাদের মাঝে প্রকাশ করার উদ্দেশ্যে। সুতরাং অবশ্যই আপনাদের সহযোগিতা করতে পারবো। ই পর্চার সুবিধা অনেক তবে এর প্রধান সুবিধা রয়েছে তা হচ্ছে এর মাধ্যমে আপনি বাসা থেকেই জমির খতিয়ান ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এছাড়াও এর অন্যতম একটি সুবিধা রয়েছে যেটির মাধ্যমে আপনি জমির মালিকানা যাচাই করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আমরা আপনাদের উভয় পদ্ধতি গুলো সম্পর্কে জানাবো মনোযোগের সাথে পুরো পোস্টটি পড়ুন।

খতিয়ান কি

আপনি কি জানেন খতিয়ান কি ? কিংবা এর কাজ কি । না জেনে থাকলে এখান থেকে জেনে নিতে পারেন। খতিয়ান বলতে আমরা অনেকেই জমি সংক্রান্ত কোন কিছু একটিকে মনে করে থাকি। খতিয়ান হচ্ছে একটি ডিজিটাল সংখ্যা। সুতরাং জমিসংক্রান্ত কাগজগুলো অর্থাৎ খতিয়ান গুলোকে সনাক্ত করার জন্য যে সংখ্যা ব্যবহার করা হয় তাকে খতিয়ান নাম্বার বলা হয়ে থাকে। আশাকরছি খতিয়ান সম্পর্কে তথ্য দিয়ে আপনাদের সহযোগীতা করতে পেরেছি নিচে খতিয়ান সম্পর্কিত আরও অনেক তথ্য রয়েছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে খতিয়ান কত প্রকার কি কি । এবং খতিয়ান এর কাজ কি বিস্তারিত সকল বিষয়ে আলোচনা রয়েছে।

খতিয়ান কত প্রকার ও কি কি

অনেকেই খতিয়ান এর প্রকারভেদ সম্পর্কে জানতে আগ্রহী এক্ষেত্রে তারা জানতে চেষ্টা করেন খতিয়ান কি ও কত প্রকার। তাই আজকের এই পোস্টে আমরা যেহেতু সকল বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দেয়ার আগ্রহ নিয়ে কাজ করছি সেহেতু নিচে খতিয়ান কি ও কত প্রকার সকল তথ্য প্রদান করা হচ্ছে। অর্থাৎ খতিয়ান এর প্রকারভেদ নিচে উল্লেখ করা হচ্ছে।

১.সিএস খতিয়ান। (Cadastral Survey)
২.এসএ খতিয়ান । (State Acquisition Survey)
৩.আরএস খতিয়ান। (Revisional Survey)
৪.বিএস খতিয়ান/সিটি জরিপ। (City Survey)

অনলাইন ই পর্চা

অনলাইনে পর্চা সম্পর্কিত তথ্যগুলো জানতে পারবেন এখান থেকে। এছাড়াও এর ঠিক নিচে আমরা অনলাইনে ই-পর্চার আবেদন সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো। ই পর্চা সম্পর্কিত তথ্য জানার পর অনেকেই এই সেবা গ্রহণ করতে চায় এক্ষেত্রে প্রথমেই যে বিষয়টি সম্পর্কে জ্ঞান থাকা প্রয়োজন রয়েছে সেটি হচ্ছে অনলাইনে ই পর্চার জন্য আবেদন। এর কারণ অনেকেই রয়েছেন যারা আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে আমরা বলব আবেদন প্রক্রিয়া সহজ একটি প্রক্রিয়া। যার মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি আবেদন কার্য সম্পন্ন করতে পারবেন। আমরা খতিয়ান এর জন্য আবেদন করার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে আপনাকে জানাবো অর্থাৎ নিচেই খতিয়ান আবেদন উল্লেখ করা হচ্ছে।

অনলাইনে ই পর্চা ও খতিয়ান আবেদন

খতিয়ান আবেদনের জন্য এর নিয়ম সম্পর্কে জানতে আগ্রহী ব্যক্তিগণ অনলাইনে অনুসন্ধান করছেন। এক্ষেত্রে আমরা অনলাইনে খতিয়ান আবেদনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য ও নিয়ম সম্পর্কে। সুতরাং আমরা এখানে এই নিয়মগুলো সম্পর্কে আপনাদের জানাবো । অনলাইনে পর্চা ও খতিয়ান এর আবেদন করতে হলে প্রথমে যে বিষয়টির উপর লক্ষ্য রাখতে হবে সেটি হচ্ছে www.eporcha.gov.bd লগইন। এটি আপনার কিছু তথ্যের মাধ্যমে লগইন করতে হবে অর্থাৎ অনলাইন আবেদন করতে গেলে লগইন এর জন্য কিছু তথ্য চাওয়া হবে।

এই তথ্যগুলি সঠিকভাবে দেওয়ার পর পাসওয়ার্ড এর মাধ্যমে আপনাকে আপনার অ্যাকাউন্ট অর্থাৎ লগইন সম্পন্ন করা হবে। এরপর যে পেজটি প্রদর্শিত করা হবে সেখানে বিভিন্ন সেবার কথা উল্লেখ থাকবে। সকল সেবার উপরে খতিয়ান আবেদন নামে একটি অপশন থাকবে সেখানে ক্লিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে আপনি খতিয়ান এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। আশা করি বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন এ বিষয়ে কোন প্রকার সমস্যা থাকলে আবার পড়ে নিয়ে সাথে সাথেই খতিয়ান এর জন্য আবেদন করে নিতে পারেন।

ই পর্চা খতিয়ান দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই

সত্যিই কি ই পর্চা ও খতিয়ান দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই করা সম্ভব ? এমন প্রশ্ন রয়েছে অনেকের মনে এক্ষেত্রে আমরা অবশ্যই আপনাদের জানাব সত্যিই এটি সম্ভব এর জন্য আপনাকে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে জানতে হবে মালিকানা যাচাই এর সঠিক নিয়ম। সুতরাং এই নিয়ম সম্পর্কে জানতে হলে থাকতে হবে আমাদের সাথে আজকের পোস্টটি জুড়ে। তবেই আপনি ই পর্চা ও খতিয়ান দিয়ে জমির মালিকানা যাচাই প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে পারবেন। মালিকানা যাচাই এর জন্য আপনাকে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক পরিচালিত সরকারী ওয়েব সাইট এর ঠিকানা এ যেতে হবে ।

এক্ষেত্রে আমরা এখানে মালিকানা যাচাই প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানাবো এখানে। এছাড়াও এর পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক পরিচালিত ভূমি মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের লিংক দিয়ে আপনাদের সহযোগীতা করা হবে। মালিকানা যাচাই এর জন্য আপনাকে ছোট্ট একটি ফরম পূরণ করতে হবে যেখানে চাওয়া হবে জমিটি কোন বিভাগে অবস্থিত । এভাবে ক্রমান্বয়ে উপজেলা এর নাম জানতে চাওয়া হবে।

এরপর মৌজা নম্বর খতিয়ান ও দাগ নম্বর প্রদান করতে হবে। এসকল তথ্য প্রদানের পর সবশেষে আপনার ভেরিফিকেশনের জন্য একটি ক্যাপচার প্রদান করা হবে সেটি সঠিকভাবে পূরণ করার মাধ্যমে আপনি জমির মালিকানা সম্পর্কে জানতে পারবেন। আশা করছি বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন এ বিষয়ে বুঝতে কোন প্রকার সমস্যা হয়ে থাকলে আবার পরে দিতে পারেন । এই সকল তথ্য সঠিক ভাবে প্রদান করার জন্য বলা হচ্ছে। এর কারণ উক্ত তথ্যগুলো থেকে কোন একটি তথ্য ভুল প্রমাণিত হলে আপনাকে ফলাফল প্রদান করা হবে না।

অনলাইনে যে কোন খতিয়ান

বিভাগ নির্বাচন: আপনি কোন বিভাগে বাস করেন সেই বিভাগ নির্বাচন করতে হবে।

জেলা নির্বাচন: আপনি যে জেলার অন্তর্ভুক্ত সেই জেলার নাম নির্বাচন করুন।

উপজেলা নির্বাচন: যেই উপজেলার অন্তর্ভুক্ত আপনি সেই জেলার নাম নির্বাচন করুন।

মৌজা নির্বাচন: আপনার মৌজার নাম নির্বাচন করুন।

খতিয়ান টাইপ নির্বাচন: যে ধরনের খতিয়ান বের করতে চান সেই ধরণ নির্বাচন করুন।

খতিয়ান নং: যে জমির পর্চা বের করবেন তা নির্বাচন করুন।

দাগ নাম্বার: দাগ নম্বর জানা থাকলে নির্বাচন করুন।

মালিকের নাম: মালিকের নাম উল্লেখ থাকলে ম্যানশন করুন।

পিতা /স্বামীর নাম: উল্লেখ থাকলে দিতে পারেন।

ক্যাপচা কোড: উপরে দেওয়া ক্যাপচা কোড টি সিলেক্ট করে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন।

ই-পর্চা

দাগ নাম্বার দিয়ে জমির মালিকের নাম

ই পর্চা সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ

বাড়িতে থেকে সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ করুন

ভূমি সেবার হটলাইন নাম্বার

eporcha gov bd login

ই-পর্চা অনলাইন আবেদন

ই-পর্চার সুবিধা

Back to top button
Close